করোনা: সংক্রমণ কমানো যাচ্ছে না

0
357

গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৪ জন। এ নিয়ে দেশে ২২৮ জন মারা গেছেন। নতুন করে করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৮৮৭ জন। এ নিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৬৫৭ জন।

রোববার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাক্তার নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় দেশে কোভিড-১৯ রোগ থেকে সুস্থ হয়েছেন ২৩৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৬৫০ জন।

ডাক্তার নাসিমা সুলতানা জানান, গতকালের চেয়ে আজ ২৫১ জন বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল আক্রান্ত হয়েছিলেন ৬৩৬ জন। তিনি বলেন, দেশে করোনায় শনাক্ত বিবেচনায় মৃতের হার ১ দশমিক ৫ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ১৮ দশমিক ১০ শতাংশ।

তিনি জানান, মারা যাওয়া ১৪ জনের মধ্যে ১০ জন পুরুষ ও ৪ জন নারী। বয়স বিশ্লেষণে ৪ জন নারীর মধ্যে ৩০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১ জন এবং ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ২ জন। ১০ জন পুরুষের মধ্যে ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৩ জন এবং ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১ জন।

ডাক্তার নাসিমা সুলতানা জানান, করোনা ভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৫ হাজার ৬৪২টি। আগের দিন নমুনা সংগ্রহ হয়েছিল ৫ হাজার ২৪৭টি। নমুনা সংগ্রহ আগের দিনের তুলনায় ৩৯৫টি কম। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজসহ দেশের ৩৬টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৫ হাজার ৭৩৮টি। আগের দিন নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল ৫ হাজার ৪৬৫টি। গতকালের চেয়ে নমুনা পরীক্ষা ২৭৩টি বেশি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১ লাখ ২২ হাজার ৬৫৭টি।

অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ১৬৯ জনকে এবং আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৭১ জন। বর্তমানে মোট আইসোলেশনে আছেন ২ হাজার ১১৫ জন। আর এ পর্যন্ত আইসোলেশন থেকে মোট ছাড় পেয়েছেন ১ হাজার ১১৪ জন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম মিলে কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে ২ হাজার ২১৮ জনকে। এখন পর্যন্ত ২ লাখ ১০ হাজার ৬২৩ জনকে কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে। কোয়ারেন্টাইন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৯৭৯ জন, এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন ১ লাখ ৭৪ হাজার ২০১ জন। বর্তমানে মোট কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৩৬ হাজার ৪২২ জন।

নাসিমা সুলতানা জানান, দেশের বিমানবন্দর, স্থল, নৌ ও সমুদ্রবন্দর দিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় ৬২৭ জনসহ সর্বমোট বাংলাদেশে আগত ৬ লাখ ৮২ হাজার ২৫৯ জনকে স্কিনিং করা হয়েছে।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পরিস্থিতি তুলে ধরে তিনি জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ৯ মে পর্যন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী ২৪ ঘন্টায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৫১৪ জন। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৯০ হাজার ৮০৮ জন। ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ১৩০ জন এবং এ পর্যন্ত ৩ হাজার ২০৪ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ৯ মে পর্যন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী সারাবিশ্বে ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯৫ হাজার ৮৪৫ জন। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮৮ জন। ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ৬ হাজার ৩৮৮ জন এবং এ পর্যন্ত ২ লাখ ৬৫ হাজার ৮৬২ জন।