গুলিতে নিহত লকডাউন অমান্যকারী

0
527
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে ফিলিপাইনে সতর্ক অবস্থানে পুলিশ। ছবি: রয়টার্স

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে ফিলিপাইনের পুলিশ। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের আগুসান দ্যেল নর্তে প্রদেশের নাসিপিত শহরে সরকার ঘোষিত লকডাউন মানেনি এক ব্যক্তি। উপরন্তু কাস্তে হাতে নিয়ে গ্রাম কর্মকর্তা ও পুলিশকে হুমকি দিয়েছিল ওই ব্যক্তি। ফলে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারাতে হয় ৬৩ বছরের ওই ব্যক্তিকে।

ডয়েচে ভেলে জানাচ্ছে, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকারের দেয়া নির্দেশনা মানতে নাগরিকদের বাধ্য করতে কঠোর অবস্থানে ফিলিপাইনের রাষ্ট্রপ্রধান। প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দ্যুতের্তে বুধবার পুলিশ ও সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দেন কেউ করোনাবিধি না মানলে গুলি করার জন্য। প্রেসিডেন্টের নির্দেশ পাওয়ার তিনদিনের মাথায় গুলি করে হত্যার ঘটনা ঘটলো।

দেশটির পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, মাস্ক না পরার কারণে গ্রামের এক স্বাস্ত্যকর্মী প্রথমে ওই ব্যক্তিকে সতর্ক করেছিলেন। এতে ক্ষেপে যান ওই ব্যক্তি। ধারণা করা হচ্ছে ওই ব্যক্তি মদ্যপান করে কাস্তে নিয়ে তল্লাশি চৌকিতে এসে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও পুলিশকে হুমকি দেন। এমনকি স্বাস্থ্য কর্মকর্তরি ওপর কাস্তে নিয়ে হামলা চালান।

পুলিশ তাকে শান্ত করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গুলি করে তাকে হত্যা করা হয়।

উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো বুধবার নাগরিকদের তার ভাষণে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছিলেন, সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন। স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকদের ক্ষতি করবেন না। এটি গুরুতর অপরাধ। কেউ যদি ঝামেলা সৃষ্টি করেন এবং তাদের জীবন ঝুঁকিতে ফেলেন তবে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর প্রতি আমার নির্দেশ, তাদের (সমস্যা তৈরিকারী) গ্রলি করে হত্যা করুন।

ফিলিপাইনে রোববার পর্যন্ত মোট ৩ হাজার ২৪৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১৫২ জন।

বিস্তারিত জানতে:

https://www.dw.com/en/man-shot-dead-for-flouting-coronavirus-rules/a-53018149