প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশনা

0
833
প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় ও বাংলাদেশ সচিবালয়ের ফাইল ছবি

গ্রীষ্ম ও বর্ষার মৌসুমী রোগ মোকাবেলার প্রস্তুতি এবং রমজান মাস ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে বেশ কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে। বলা হয়েছে, জনপ্রত্যাশিত সেবা, নিত্যপণ্যের মজুদ ও সরবরাহ, ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা এবং জনদুর্ভোগ কমাতে হবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট দফতরগুলো এই নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ শুরু করেছে বলে জানা গেছে। বুধবার (৪ মার্চ) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত উচ্চ পর্যায়ের এক সভায় এ নির্দেশনা বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

রমজান মাসে নিত্যপণ্যের মজুদ ও সরবরাহ, ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা, খাদ্যে ভেজাল প্রতিরোধ, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি, প্রতারণা ও ছিতাইয়ের মত গণ-উপদ্রব প্রতিরোধ, ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ মহানগরগুলোর যানজট নিরসনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, শিল্প মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জেলা প্রশাসন, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, জননিরাপত্তা বিভাগ, ঢাকা মহানগর পুলিশ, বাংলাদেশ পুলিশকে দায়িত্ব দেয়া হয়।

এছাড়াও বাস টার্মিনালগুলোর নিরাপত্তা ও ব্যবস্থাপনা, মহাসড়কে শৃঙ্খলা, যানজট নিরসন, বিভিন্ন রুটে বিআরটিসি’র বাস সংখ্যা বৃদ্ধি করাসহ বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়া হয়।

রমজান মাসে ইফতার, সেহরি, তারাবিসহ সব নামাজের সময় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ও সার্বক্ষণিক পানি সরবরাহ এবং রেল যাত্রা ও রেলের টিকেটপ্রাপ্তি সহজ লভ্য করা, টিকেট কালোবাজারি প্রতিরোধ ও সিডিউল বিপর্যয় নিরসনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দেয়া হয়।

এছাড়া ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়াসহ মৌসুমি রোগ প্রতিরোধে প্রস্তুতি, এডিস, কিউলেক্স, অ্যানাফেলিসসহ বিভিন্ন প্রজাতির মশা নির্মূলে পদক্ষেপ ও প্রস্তুতি, মশা নির্মূলের প্রয়োজনীয় ওষুধ ও সরঞ্জামাদি সময়মত সংগ্রহ এবং প্রয়োজনীয় লোকবল মোতায়েন, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও জনসচেতনতামূলক প্রচারের জন্য স্বাস্থ্য বিভাগ ও স্থানীয় সরকার বিভাগকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ডক্টর আহমদ কায়কাউসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিব এবং প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।