বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার

0
131

৬ জুন ২০২১ (নিউজ ডেস্ক): বৃক্ষরোপণ অভিযানকে একটি টেকসই ও স্বতঃস্ফূর্ত কার্যক্রমে পরিণত করতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ জন্য ‘বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার-২০১৯’ প্রদানের জন্য ১৪ জন ব্যক্তি ও ১৬টি প্রতিষ্ঠানকে চূড়ান্তভাবে মনোনীত করেছে সরকার।

রোববার মনোনয়ন চূড়ান্ত করতে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে পদক সংক্রান্ত জাতীয় কমিটির সভা হয়। সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভাপতির বক্তব্যে বনমন্ত্রী বলেন, দেশে অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান বৃক্ষরোপণ করে প্রশংসনীয় কাজ করে চলেছেন। তিনি বলেন, সরকার গত অর্থবছর দেশে আট কোটির বেশি গাছ লাগিয়েছে। এবারও আট কোটির ওপরে গাছ লাগানো হবে। সরকারের পাশাপশি ব্যক্তি ও বেসরকারি সংস্থা এগিয়ে এলে ‘মুজিববর্ষে অঙ্গীকার করি, সোনার বাংলা সবুজ করি’ বাস্তবে রূপ দিতে পারবো।

মন্ত্রী বলেন, পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের সম্মানীর পরিমাণ ভবিষ্যতে বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হবে।

ব্যক্তিগত পর্যায়ে বৃক্ষরোপণ’ শ্রেণিতে প্রথম ও দ্বিতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে উনুচিং মারমা, খাগড়াছড়ি। পারভীন সিরাজ, মুন্সিগঞ্জ এবং তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যৌথভাবে ইসাক আহমেদ, নাটোর এবং মোহাম্মদ মেহেদী হাসান কবির, বড়লেখা, মৌলভীবাজার মনোনীত হয়েছেন।

বাড়ীর ছাদে বাগান সৃজন’ শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য যথাক্রমে নাহিদা বারিক, কলাবাগান, ঢাকা। রাখী দে, দিনাজপুর সদর এবং ওয়াহিদা ইয়াসমিন, বেতিয়াপাড়া, রাজশাহী মনোনীত হয়েছেন।

বৃক্ষ গবেষণা/সংরক্ষণ/উদ্ভাবন’ শ্রেণিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারের জন্য ডক্টর মোহাম্মদ আব্দুল হাকিম মন্ডল, রাজবাড়ী। মোহাম্মদ মোকাম্মেল হক খান, চট্টগ্রাম এবং হৃদয় চন্দ্ৰ দেবনাথ, মৌলভীবাজার মনোনীত হয়েছেন।

উল্লেখ্য, বৃক্ষরোপণে যারা বিশেষ অবদান রাখেন তাদের ১৯৯৩ সাল থেকে “বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার” দেয়া হচ্ছে।

পরিবেশ মন্ত্রী/এসকেএম/আরএম